উদ্যোক্তা

নেটওয়ার্ক মার্কেটিং কী?

Life Hacks 2020-12-23 13:42:44 ব্যবসা বানিজ্য 2 months agoViews:76

নেটওয়ার্ক মার্কেটিং কী?


নেটওয়ার্ক মার্কেটিং বা ডাইরেক্ট সেলিং ব্যবসা বিশ্বজুড়ে নন্দিত। বিশ্বজুড়ে উৎপাদিত পণ্য বাজারে মার্কেটে না থাকলে বিপণন করা যায় না, উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের থেমে যায়। সকল উদ্যোক্তাই একমত যে, অন্যদিকে যদি ঠিকমত না হয় তবে কোন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান টিকে না। এই গ্রুপের সব বলা যায় যে, মাত্র কয়েক দশকে নেটওয়ার্ক মার্কেটিং সিস্টেম বিশ্বজুড়ে সফল ও দ্রুতগামী একটি বিপণন পদ্ধতি।


নেটওয়ার্ক মার্কেটিং ব্যবসা লক্ষ লক্ষ ব্যাকরণ কর্মহীন মানুষকে আত্ম-কর্মসংস্থানের পথ দেখিয়েছে এবং প্রতিনিয়ত দেখাচ্ছে। করবেন শিক্ষিত যুবক যুবতীদের প্রতি ব্যবসা করে নিজেদের খুব দ্রুত স্বাবলম্বী হিসেবে সমাজে প্রতিষ্ঠা করেছে। তাই অনেকে নাম দিয়েছে 'Freedom Enterprise'। রনি কি জীবনের বিভিন্ন ক্ষেত্রে বহুকাল ধরে পরোক্ষভাবে নেটওয়ার্ক মার্কেটিং করে চলেছে মনের অজান্তে। যেমন কোন দোকানের চা খুবই ভালো।যদি আপনার কথা শুনে দোকানের চা যদি কেউ পান করে তবে দোকানে চা বিক্রি হয়। এটাই নেটওয়ার্ক মার্কেটিং। এর ফলে দোকানদার লাভবান হচ্ছে, আপনি কোন সুবিধা পাচ্ছেন আমাকে ন্যূনতম ধন্যবাদ দেওয়া হয় না, কিন্তু বিনামূল্যে আপনি  বিজ্ঞাপন করে দিলেন।


মাধ্যমে যদি কোম্পানির কোন পণ্য বিক্রি হয়, তবে সেজন্য কোম্পানি আপনাকে কমিশন দিতে আগ্রহী।  পণ্য বিপণন করা ও উৎপাদনকারী থেকে সরাসরি ক্রেতার কাছে পৌঁছে দেওয়া, এটাই নেটওয়ার্ক মার্কেটিং। এ পদ্ধতিতে কোন বিজ্ঞাপন, শোরুম খরচ ,অন্যান্য খরচের দরকার হয় না


নেটওয়ার্ক মার্কেটিং এর সূচনা:


নেটওয়ার্ক মার্কেটিং আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত একটি বৈধ, সৎ দ্রুত সম্প্রসারণশীল ব্যবসা। হাজার  1940-41 সালে ক্যালিফোর্নিয়ায়প্রাকৃতিক সার ব্যবহার করে সবজি চাষাবাদ এর মাধ্যমে অভিজাত শাক-সবজি হতে খাদ্যপ্রাণ বা ভিটামিন (ক্যালিফোর্নিয়া ভিটামিন) ট্যাবলেট এর ফর্মুলা তৈরি করেন এবং সেই ভিটামিন ট্যাবলেট না করে সরাসরি মার্কেটিং পদ্ধতিতে পণ্য বিবরণ শুরু করেন। যার উদ্যোক্তা ছিলেন ক্যালিফোর্নিয়ার একজন ফুট কেমিস্ট ড: কার্ল রেইন বোর্গ।এ পদ্ধতিতে বেকার যুবক ও যুবতীরা------------ পার্টটাইম নেটওয়ার্ক মার্কেটিং ব্যবসা করতে আগ্রহী হন। আগ্রহীদের এই বিপণন পদ্ধতিতে কাজে লাগিয়ে মুখে মুখে প্রচার পদ্ধতির মাধ্যমে তিনি কার্যক্রম শুরু করেন।


উক্ত পদে দেবীবরণ শুরু হবার দীর্ঘ 18 বছর পর 1958 সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সংসদীয় বিলের মাধ্যমে ১০ ভোট বেশি পেয়ে ফ্রানচাইজ এর পাশাপাশি সারা বিশ্বে মার্কেটিং করা স্বীকৃতি লাভ করে। এরপর থেকেই এর বিকাশ হচ্ছে দ্রুততর গতিতে।


এ ব্যাপারে শুধুমাত্র বিভিন্ন দেশের আইন দ্বারা স্বীকৃত,বরং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ উন্নত বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় সমূহের কারিকুলামেও এ বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইলিনইয়িস বিশ্ববিদ্যালয়,শিকাগো এবং লং আইল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মার্কেটিং এর উপর কোর্স রয়েছে। আমাদের দেশে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে বিবিএ/এমবিএ করছো এখন এই পদ্ধতিটি অন্তর্ভুক্ত।


বর্তমানে সারা বিশ্বের 150 টিরও বেশি দেশে ৩০,০০০ এর বেশি কোম্পানি এই পদ্ধতিতে তাদের পণ্য এবং সেবন করে আসছে।আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে নেটওয়ার্ক মার্কেটিং ব্যবসা শুরু হয় হাজার 1997 সালে। ভারতে ব্যবসাটি বর্তমানে অনেক জনপ্রিয় এবং সেখানে অনেকগুলো কোম্পানির ব্যবসা করতেছে। মুসলিম রাষ্ট্রগুলোতে যেমন: মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, আরব আমিরাত, পাকিস্তান, ব্রুনাই, আলজেরিয়ায় প্রতিদিন অসংখ্য প্রতিষ্ঠান ব্যবসা করতেছে। মালয়েশিয়াতে  1972 সালে নতুন কাটিং এর সূচনা হয়।নেটওয়ার্ক মার্কেটিং এর উপর নীতিমালা প্রণয়ন করে 1993 সালে দেশটির সরকার 'Dire Sales ACT-1993 নামে আইন প্রবর্তন করেন।বর্তমানে দেশটিতে 817 বেশি কোম্পানি সক্রিয়ভাবে কাজ করতেছে।


জাপানের সবচেয়ে জনপ্রিয় প্রণব গ্রহণকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে আমেরিকার এম,ওয়ে মার্কেটিং কোম্পানি প্রতিষ্ঠা লাভ করেছে। 1993 সালে এম ওয়ে কোম্পানি বিদেশি কোম্পানিগুলোর মধ্যে প্রথম হয়।1992 সালে হাঙ্গেরিতে যখন এম ওয়ে কোম্পানির মার্কেটিং ব্যবসায় উদ্যোগ গ্রহণ করে তখন প্রথম তিন সপ্তাহের মধ্যে প্রায় (50,000) বক্তা কোম্পানিতে যোগদান করেন।


নেটওয়ার্ক মার্কেটিং এর কমিশন বন্টন:


কমিশন বন্টন 4 পদ্ধতিতে:

1.. Uni-Level (1) (2) (3) (4) (5) এম ওয়ে

2.. stair step break একাধিক লিংক করা যায় 

3.. matrix (1) 5*5  (2) 4*4. (3)

4.. binary ( Excellent world)  (1). 2*2

কমেন্ট


রিলেটেট পোস্ট